বাংলা রচনা সমগ্র

ছুটির দিনে বাংলা রচনা

ভূমিকা :

বিশ্বকবি রবীন্দ্রনাথ ঠাকুর বলেছেনমেঘের কোলে রোদ হেসেছে বাদল গেছে টুটি আজ আমাদের ছুটি ভাই আজ আমাদেরছুটি।আসলেছুটি শব্দটি উচ্চারিত হলেই যেকোনো মানুষের মনই আনন্দে আত্মহারা হয়ে যায় মনে মনে কল্পনার জালছড়িয়ে রাখে ছুটির দিনটি কি করে কাটাবে , কোথায় কোথায় যাওয়া যাবে ইত্যাদি জগৎ সংসারের কর্মক্ষেত্রে মানুষস্বাভাবিকভাবে নিজ কর্ম করে জীবনের নির্ধারিত দিনগুলো কাটিয়ে দেয় কিন্তু অবিরাম কর্মব্যস্ততা মানুষের দেহমনকেক্লান্তিতে ভারাক্রান্ত করে তোলে ফলে জীবন নিতান্তই একঘেয়েমি হয়ে পড়ে সেই কর্মময় জীবনের ক্লান্তি একঘেয়েমির কবলনিষ্কৃতি লাভের জন্য মাঝে মাঝে ছুটির প্রয়োজন দুটি মানুষের দেহমনকে সতেজ প্রফুল্ল করে তোলে মানুষকে নতুনকরে কাজ করার শক্তি যোগায় তাই কর্মব্যস্ত মানুষের জীবনে ছুটি আনন্দের বার্তা বয়ে আনে ছুটি আসেজীবনের সামনেরমুহূর্তগুলো কে কাজে মুখর করার প্রয়োজনীয় শক্তি সঞ্চয়ের জন্য।

ছুটির দিনের আনন্দ:

ছুটির দিনটি অত্যন্ত আনন্দঘন দিন দিনটি সবাই হয়ে থাকে আঁচাহীন পাখির মতো, বাধাহীন বল্লা হরিণের ন্যায় বিভিন্নপেশার বিভিন্ন জন তাদের ছুটির দিনটিকে উপভোগ করে থাকে নানাভাবে।এই দিনে ছাত্রছাত্রীদেরেকে স্কুলের কড়া নিয়মনীতিরভেতরে আবদ্ধ থাকতে হয় না।বাড়িতেও অভিভাবকদের কড়া শাসনে থাকতে হয় না।সবাই এই দিনে সহজ স্বাভাবিকজীবনধারার কিছুটা পরিবর্তন আনে ছুটির দিনে যেহেতু ধরাবাঁধা কাজের কোনো তাড়া থাকে না , তাই স্বভাবতই এই দিনেঅনেকে সকালে দেরি করে ঘুম থেকে ওঠে ছুটির দিনে অনেকেই বাইরে ঘুরে বেড়ায় ঘরে ফিরে আসার নাম থাকে না কেউকেউ আবার বাসার বাইরে না গিয়ে ঘরে বসেই ছুটি কাটায় কেউ কেউ আবার গল্পের বই , নাটক , মজার কাহিনী , উপন্যাসইত্যাদি পড়ে বা টিভি , ভিসিআর দেখে বা ক্যাসেট প্লেয়ারে গান শুনে ছুটির দিনটি কাটিয়ে দেয় ছুটির দিনে কেউ কেউআত্মীয়ের বাসায় বেড়াতে যায় লম্বা ছুটি হলে অনেকে দূরে নানার বাড়ি , ফুফুর বাড়ি , খালুর বাড়ি বেড়াতে যায় ছুটির দিনেঅনেকে বন্ধুবান্ধব মিলে আবার পিকনিকের আয়োজন করে থাকে গ্রীষ্মের ছুটিতে আবার অনেকে আম , জাম , কাঁঠালপ্রভৃতি সুস্বাদু ফল খাওয়ায় মেতে ওঠে কেউবা আবার নজরুল ইসলামের মতো হয়ে ওঠে লিচু চোরের নায়ক মোটকথা , ছুটিরদিনটিকে সবাই যথেষ্ট আনন্দের সাথে উপভোগ করে থাকে।

ছুটির দিনের বর্ণনা :

ছুটির দিনকে যথাযথভাবে উপভোগ করার জন্য উপযুক্ত পরিকল্পনা দরকার তেমনি একটি ছুটির দিনে আমি ছুটি উপভোগকরতে মামার সঙ্গে মিরপুর চিড়িয়াখানায় যাব বলে মনস্থির করলাম সকালে নাস্তা করে মামার সঙ্গে একটি রিক্সায় চেপে চলেগেলাম গুলিস্তান।সেখান থেকে মিরপুরে অভিমুখী বাসে চড়ে বেলা দশটায় আমরা গিয়ে পৌছলাম মিরপুর চিড়িয়াখানায় মামাআমাকে প্রথমেই নিয়ে গেলেন বাঘের খাঁচার কাছে কিন্তু বাঘটি ঠিক আমার কল্পনার বাঘের মতো মনে হয় নি মামা আমাকেবোঝালেন এটা রয়েল বেঙ্গল টাইগার নয় , এটা একটি চিতা বাঘ তারপর তিনি আমাকে নিয়ে গেলেন একটি প্রকাণ্ড বাঘেরখাঁচার কাছে আমরা যেতেই প্রকাণ্ড বাঘটি দুতিন পাক ঘুরেই চোখ পাকিয়ে গর্জন করে উঠলো আমি ভয় পেয়ে গেলাম বুঝতেপারলাম বাঘ আমার কল্পনার রয়েল বেঙ্গল টাইগার অনতিদূরেই ছিল কয়েকটি ছোট বড় হাতি কুলার মতো বড় বড়কানগুলো নেড়ে তারা শুধু এগুচ্ছিল পিছুচ্ছিল তাদের দেখে বড়ই গোবেচারা মনে হলো। হাতি দেখে মোটেই ভয় পেলাম না কিন্তু বড় বড় বানর দেখে সত্যিই ভয় পেয়ে গেলাম তারা বারবারই লোহার বেড়া ধরে ঝাঁকুনি দিয়ে আমাদের ভয় দেখাচ্ছিল।এভাবে কয়েক ঘণ্টা ধরে আমরা চিড়িয়াখানায় নানা প্রকার সাপ , পাখি , নানা জাতের গরু , উট , হরিণ , হাঁস প্রভৃতি জীবজন্তুদেখে বেড়ালাম।মাঝে মাঝে চকলেট , আইসক্রিম , বাদাম , চিপস ইত্যাদি খাচ্ছিলাম কিন্তু হাঁটতে হাঁটতে অত্যন্ত ক্লান্ত হয়েপড়ছিলাম তবুও বিচিত্র সব জীবজন্তু দেখে পুলকে আর বিস্ময়ে আমার মনটি ভরে গিয়েছিল সারাদিন চিড়িয়াখানা দেখেমামার সঙ্গে রেস্তোরাঁয় খেয়ে ছুটির দিনটি অনেক আনন্দেই কাটিয়েছিলাম।

ছুটির দিনের প্রয়োজনীয়তা:

কর্মই জীবন কথা চিরন্তন সত্য হলেও মানবজীবনে ছুটির দিনের প্রয়োজনীয়তা অপরিসীম কারণ কর্মচঞ্চল জীবনেএকটানা কাজ করতে করতে মানুষের মন ক্লান্তি আর অবসাদে বিষিয়ে ওঠে তাছাড়া অনবরত কাজ করলে কাজের প্রেরণা লুপ্তহয় এবং মানুষের কাছ থেকে ভালো ফল আশা করা যায় না তাই মানুষের কর্মময় জীবন থেকে ক্লান্তি আর অবসাদ দূর করেসামান্য মুক্তির আনন্দ দিতে ছুটির দিনের প্রয়োজনীয়তা অনস্বীকার্য ছুটির দিনে মানুষ দৈনন্দিন রুটিনের বাইরে মুক্ত বাতাসেদীর্ঘনিঃশ্বাস ছাড়ার সুযোগ পায়।অলস বেলায় গা এলিয়ে দিয়ে অর্জন করে শক্তি সামর্থ্য।অর্জন করে নতুন করে কাজ করারউদ্যম সাহস।তাই কবি বলেছেনবিশ্রাম কাজের অঙ্গ যেন এক সূত্রে গাঁথা নয়নের অঙ্গ যেন নয়নেরই পাতা

উপসংহার :

প্রকৃতপক্ষে শিশুকিশোরের মন মানতে চায় না কোনো আইন , কোনো নিয়মনীতি তারা দুরন্তদুর্বার ছুটির দিনে তাদেরসেই মনেরই বহিঃপ্রকাশ হয়ে থাকে ছুটির দিনটিকে জীবনে অর্থবহ করে তোলার মতো যথেষ্ট সুযোগসুবিধা আমাদের দেশেনেই তাই ছুটির দিনে নিরাশাভরা মন নিয়ে ঘরে বসে সময় কাটানোই আমাদের জীবনের বৈশিষ্ট্য হয়ে দেখা দেয়।সুতরাং ছুটিরদিনটিকে আনন্দে অতিবাহিত করতে আমাদের দেশে আরো চিত্তবিনোদনের প্রয়োজনীয়তা উপকরণ থাকা দরকার তবেই ছুটিরদিনের আনন্দ সার্থক হবে।

Related Articles

Leave a Reply

Your email address will not be published.

Back to top button