বাংলা রচনা সমগ্র

দ্রব্যমূল্য বৃদ্ধি ও তার প্রতিকার রচনা

ভূমিকা :

বর্তমানে দেশের অন্যতম বিষয় নিত্যপ্রযোজনীয় দ্রব্যের মূল্য বৃদ্ধি দৈনন্দিন জীবনে আমাদের বেঁচে থাকার জন্য প্রয়োজন অন্ন , বস্ত্র , বাসস্থান , শিক্ষা চিকিৎসা আর মৌলিক চাহিদাগুলোর মধ্যে অন্নের প্রয়োজন সর্বাগ্রে কিন্তু খাদ্যদ্রব্য , চাল , ডাল , তেল , লবণ , মরিচ , পিয়াজ , রসুন , মাছ , তরকারি , চিনি , দুধ ইত্যাদি নিত্যদিনের প্রয়োজনীয় জিনিসের মূল্যের অস্বাভাবিকঊর্ধ্বগতি জনজীবনের গতিকে অচল আড়ষ্ট করে তুলেছে।

দ্রব্যমূল্য বৃদ্ধির কারণ :

দ্রব্যমূল্য বৃদ্ধির অনেক কারণ রয়েছে যেমন

১। চাহিদা যোগান :

দ্রব্যমূল্য বৃদ্ধির অন্যতম কারণ চাহিদা যোগানের ভারসাম্যহীনতা চাহিদা তীব্র সরবরাহ সীমাবদ্ধ হলে পণ্যের জন্য ক্রেতারভিড় বেড়ে যায় পণ্য সংগ্রহের জন্য শুরু হয় প্রতিযোগিতা ফলে অনিবার্যভাবে মূল্যবৃদ্ধি ঘটে।

২। অসাধু ব্যবসায়ীদের কারসাজি :

আকস্মিক কৃত্রিম মূল্য বৃদ্ধিতে মজুতদার , মুনাফাখখার , ফটকাবাজ , চোরাচালানি ইত্যাদি অসাধু ব্যবসায়ীদের স্বার্থান্বেষীভূমিকা থাকে এরা সুযোগ বুঝে হঠাৎ করে নিত্যপ্রয়োজনীয় পণ্য বাজার থেকে গায়েব করে গোপনে মজুত করে এবং বাজারেকৃত্রিম সঙ্কট তৈরি করে শুরু হয় কালোবাজারি পণ্যের জন্য হাহুতাশ শুরু হলে এই সুযোগে তারা দাম বাড়ায় এবং অল্পঅল্প করে গোপন মজুদ বাজারে ছাড়ে এভাবে তারা বিপুল টাকা চোরাইপথে হাতিয়ে নেয়

৩। বৈদেশিক রপ্তানি :

অনেক সময় বিদেশে পণ্য রপ্তানি লাভজনক হলে রপ্তানিকারকরা সেগুলো বিদেশে রপ্তানি করে এর ফলে দেশেও রপ্তানিযোগ্যপণ্যের মূল্য বাড়ে

৪। কর বৃদ্ধি :

অনেক সময় সরকারের মাথাভারি , দুর্নীতিগ্রস্ত প্রশাসন চালাতে গিয়ে সরকারকে জনগণের ওপর অতিরিক্ত করেরবোঝা চাপাতে হয় সে কর প্রত্যক্ষ হোক , কিংবা ভ্যাটের আকারে হোক তার ফলে পণ্যের দাম বাড়ে এই জন্য দেখা যায় , বাজেটে কোনো পণ্যের কর বৃদ্ধির প্রস্তাব থাকলে তার মূল্য রাতারাতি বেড়ে যায়

৫। চাঁদাবাজি দুর্নীতি :

আমাদের দেশে রাজনৈতিক অস্থিতিশীলতা প্রশাসনিক দুর্নীতির সুযোগে নিয়ে এক শ্রেণির চাঁদাবাজ ঘাটে ঘাটেজবরদস্তিমূলকভাবে বিভিন্ন গণপরিবহন থেকে ব্যবসায়ীদের কাছ থেকে অবৈধ চাঁদা আদায় করে স্থানীয় মাস্তান , প্রতিপত্তিশালী সন্ত্রাসী ; দুর্নীতবাজ পুলিশসবাই চাঁদাবাজিতে লিপ্ত হওয়ায় তার অশুভ প্রভাব পড়ে পণ্যমূল্যের ওপর

৬। সংরক্ষণ , সরবরাহ বন্টনে অব্যবস্থা :

আমাদের দেশে রাজনৈতিক , সামাজিক অস্থিরতার কারণে পরিবহন ধর্মঘট , শ্রমিক ধর্মঘট , রাস্তাঘাট অবরোধ ইত্যাদি নিয়মিতব্যাপার হয়ে দাঁড়িয়েছে তার ওপর পরিবহন যোগাযোগ ব্যবস্থার অপ্রতুলতা , বণ্টন ব্যবস্থার ত্রুটির ফলে দ্রব্যমূল্য বৃদ্ধিরপ্রবণতা পরিলক্ষিত হয়

৭। বিশ্ব বাজারে পণ্যমূল্য বৃদ্ধি :

পণ্যমূল্য বৃদ্ধি কেবল বাংলাদেশের একক সমস্যা নয় আশেপাশের দেশ এমনকি আমেরিকা , ব্রিটেন , জার্মানি প্রভৃতি উন্নতদেশও সমস্যা মোকাবিলা করছে এক অর্থে এটি আন্তর্জাতিক সমস্যা এর ফলে আমাদের দেশেও আমদানিকৃত পণ্যের দামবৃদ্ধি পায়

৮। জনসংখ্যা বৃদ্ধি :

মানুষ বাড়ছে অথচ জমি বাড়ছে না , বাড়ছে না খাদ্যোৎপাদন ফলে নিত্যদিনের জিনিসের অপ্রতুল সরবরাহের কারণে দামঅস্বাভাবিক হারে বৃদ্ধি পাচ্ছে

৯। জমির উর্বরতা হ্রাস :

যুগ যুগ ধরে আমাদের জমিগুলোতে সনাতন পদ্ধতিতে চাষাবাদ করা হচ্ছে জমিতে একই ধরনের ফসল উৎপাদন , সার কীটনাশক ব্যবহারের ফলে জমির উর্বরতা শক্তি হ্রাস পাচ্ছে কৃষকের প্রত্যাশা অনুযায়ী জমিতে ফসল ফলছে না অথচচাহিদা বাড়ছে দিনের পর দিন বাজারে চাহিদার তুলনায় অনেক কম খাদ্যশস্য আমদানি হচ্ছে ফলে পণ্যমূল্যের দাম বৃদ্ধিপাচ্ছে

দ্রব্যমূল্য বৃদ্ধির প্রতিক্রিয়া :

দ্রব্যমূল্য বৃদ্ধি সাধারণ মানুষের জীবনকে দুর্বিসহ করে তোলে আমাদের দেশে অধিক দামে দ্রব্য ক্রয় করার সামর্থ্য আছেমুষ্টিমেয় লোকের তাই যেসব কারণে পণ্যমূল্য বৃদ্ধির কথা বলা হয়েছে তার প্রভাব সবটাই সাধারণ জনগণের ওপর পড়ে অধিক ব্যয় করার সামর্থ্য এদেশের অধিকাংশ জনগণেরই নেই ফলে বাধ্য হয়ে ব্যয় কমাতে হয় অনেক সময় দেখা যায় , বেঁচেথাকার তাগিদে অপরিহার্য উপকরণ সংগ্রহ করতেই তাদের হিমশিম খেতে হয় সাধারণ মানুষের জীবনধারণের খরচ বেড়েযাওয়ার ফলে নেমে যাচ্ছে জীবনধারণের মান , কমছে শিক্ষা সংস্কৃতির মান এর প্রভাব পড়ছে শিশুদের ওপর শিশুরাউপযুক্ত যত্নের অভাবে পুষ্টিহীনতায় ভোগে আর্থিক সঙ্কটের ফলে ছাত্রছাত্রীদের জীবনে নেতিবাচক প্রভাব পড়ে বাড়তিআয়ের জন্য অনেকে অবৈধ উপার্জনের দিকে মনোযোগী হয়ে পড়ে ফলে সমাজে সৃষ্টি হয় নানা অবক্ষয়

প্রতিকারের উপায় :

বর্তমানে দেশের সবচেয়ে বড় সমস্যা হলো দ্রব্যমূল্যের ঊর্ধ্বগতি পরিস্থিতির প্রতিকারের জন্য সরকারি বেসরকারি পর্যায়েবিভিন্ন পদক্ষেপ নেয়া হচ্ছে দ্রব্যমূল্যের এরূপ উর্ধ্বগতিতে কার্যকর পদক্ষেপ নেয়া জরুরি বলে বিশেষজ্ঞ মহল মনে করছে নিম্নে সম্পর্কে বিভিন্ন পদক্ষেপের কথা উল্লেখ করা হলো:

, সরকারি উদ্যোগ :

দ্রব্যমূল্যের ঊর্ধ্বগতি নিয়ন্ত্রণে সরকার একটি দ্রব্যমূল্য নির্ধারণ নীতিমালা প্রণয়ন করতে পারে আইনের আওতায় দ্রব্যের মূল্যনির্ধারণ , চোরাকারবার প্রতিরোধ , ফড়িয়া অসাধু ব্যবসায়ীদের দৌরাত্ম হ্রাস ইত্যাদি ব্যবস্থা গ্রহণ করে পরিস্থিতি মোকাবিলাকরা যায় ব্যবসায়ীরা যাতে ইচ্ছামতাে জিনিসের মূল্য বৃদ্ধি করতে না পারে , সেজন্য একটি প্রবল নিয়ন্ত্রণ কমিটি গঠন করেতাদের হাতে বিষয়ক দায়িত্ব ন্যস্ত করতে হবে সেই সাথে ব্যবসায়ী বিশেষজ্ঞ কমিটি নামে একটি কমিটি গঠন করে অবস্থারউন্নতি করা যেতে পারে

. পণ্যমূল্য নির্ধারণ , আইন প্রণয়ন প্রয়োগ :

পণ্যমূল্য নির্ধারণে আইন প্রণয়ন তা প্রয়োগের যথাযথ ব্যবস্থা নিতে হবেসরকারের খাদ্য মন্ত্রণালয় , আইন প্রয়োগকারী সংস্থা দায়িত্ব নিতে পারে সেই সাথে পণ্যমূল্য নির্ধারণ তদারকি করারজন্য পণ্যমূল্য মনিটরিং সেল নামে একটি সেল গঠন করে তার কার্যকারিতা জোরদার করা যেতে পারে নিয়ম বহির্ভূতভাবে কেউপণ্যদ্রব্য কেনাবেচা করলে তার বিরুদ্ধে যথাযথ ব্যবস্থা গ্রহণ করতে হবে এভাবে আইন প্রণয়ন তার সঠিক প্রয়োগের মাধ্যমেদ্রব্যমূল্যের লাগামহীন উর্ধ্বগতি রোধ করা যেতে পারে

সরকারের গৃহীত পদক্ষেপ :

দ্রব্যমূল্যের লাগামহীন উর্ধ্বগতিতে সরকার নানা পদক্ষেপ গ্রহণ করেছেন দ্রব্যমূল্য নিয়ন্ত্রণে দোকানে দোকানে পণ্যের মূল্যতালিকা টানানোর ব্যবস্থা করা হয়েছে বিষয়টি মনিটরিং করার জন্য টিসিবিকে দায়িত্ব দেয়া হয়েছে পাশাপাশি এখন থেকেপ্রতি সপ্তাহে স্পর্শকাতর পণ্যের খুচরা পাইকারি মূল্যের তালিকা বাণিজ্য মন্ত্রণালয়ে পাঠানোর নির্দেশ দেয়া হয়েছে বর্তমানআইনানুযায়ী দোকানে দোকানে পণ্যের মূল্য তালিকা টানানো বাধ্যতামূলক বাণিজ্য মন্ত্রণালয় এই আইন প্রয়োগের ব্যাপারেআইন মন্ত্রণালয়ের সহায়তা নিবে

উপসংহার :

সরকার জনগণ সমাজবিরোধী কার্যকলাপের বিরুদ্ধে সজাগ হয়েছে এবং চোরাকারবারি কালোবাজারি ইতোধ্যে সরকার জনগণের হাতে লাঞ্ছিত শাস্তি ভোগ করছে ব্যবসায়ী , সরকার জনগণের সার্বিক সহযোগিতায় দ্রব্যমূল্যের উর্ধ্বগতিনিয়ন্ত্রণে রাখা সম্ভব হলে দেশের মানুষ স্বস্তির নিঃশ্বাস ফেলবে আমাদের এই সুজলাসুফলা , শস্যশ্যামলা বাংলদেশ কৃষি , শিল্প বাণিজ্যে অদূর ভবিষ্যতে উন্নত সমৃদ্ধ হয়ে উঠবে বিশ্বাস আমাদের সকলের

Related Articles

Leave a Reply

Your email address will not be published.

Back to top button