বাংলা রচনা সমগ্র

বাংলাদেশের কৃষক (রচনা)

ভূমিকা :

বাংলাদেশ কৃষিপ্রধান দেশ এদেশের শতকরা প্রায় ভাগ লোক কৃষক বাংলাদেশ শস্যশ্যামল তথা ধনধান্যে পুষ্পে ভরা একসমৃদ্ধ সুন্দর দেশ কৃষকরা দেশের প্রাণ শ্রম দিয়ে শস্য ফলিয়ে তারা এদেশের মানুষকে বাঁচিয়ে রেখেছে কিন্তু দুঃখের বিষয়বাঙালির স্বাধীনতা লাভের প্রায় অর্ধশত বছর কেটে গেছে কিন্তু কৃষকদের অবস্থার কোনো পরিবর্তন হয়নি আগে তারা অল্পেতুষ্ট ছিল তাই দরিদ্র সংসারেও হাসি ছিল , প্রীতি প্রেম ছিল তারা ঋণগ্রত ছিল না এখন তাদের সেদিন আর নেই

কৃষকের অতীত :

প্রাচীনকালে দেশে জনসংখ্যা ছিল কম , জমি ছিল বেশি উর্বর জমিতে প্রচুর ফসল হতো তখন শতকরা ৮৫ জনই ছিলকৃষক তাদের গোলা ভরা ধান , গোয়াল ভরা গরু আরা পুকুর ভরা মাছ থাকত তাদের জীবন ছিল সুখী সমৃদ্ধ তারপরএলো বৰ্গীর অত্যাচার ফিরিঙ্গিপর্তুগিজ জলদস্যুদের নির্যাতন , ইংরেজদের খাজনা আদায়ের আইন , শোষণ নিপীড়ন এলো মন্বন্তর , মহামারী গ্রামবাংলা উজাড় হলো। কৃষক নিঃস্ব হয়ে গেল সম্পদশালী কৃষক পরিণত হলো ভূমিহীন চাষিতে দারিদ্র্য তাকে কোণঠাসা করলো কৃষকের জীবন হয়ে উঠল বেদনাদায়ক কবিগুর রবীন্দ্রনাথ ঠাকুরের ভাষায়কম্বে যততার চাপে ভার বহি চলে মন্দগতি যতক্ষণ থাকে প্রাণ তার তারপর সন্তানের দিয়ে যায় বংশ বংশ ধরি শুধু দুটি অন্ন খুঁটি কোনমতে কষ্টক্লিষ্টপ্রাণ রেখে দেয় বাঁচাইয়া

বর্তমান অবস্থা :

বাংলা রাজনৈতিক ইতিহাসের অনেক পরিবর্তন হয়েছে বাংলাদেশ স্বাধীনতা লাভ করেছে কিন্তু কালের চক্রে আজ বাংলারকৃষকেরা নিষ্পেষিত বাঙালি কৃষকের উদ্বাস্তু , অসহায় বিষ জীবনের কোনো রূপান্তর ঘটেনি বাংলার কৃষক আজোশিক্ষাহীন , বস্ত্রহীন , চিকিৎসাহীন , জীবনযাপন করছে দেশের জনসংখ্যা বেড়েছে , কমেছে কৃষি জমির পরিমাণ জমিরউর্বরতাও গেছে কমে ফলে বাড়তি মানুষের খাদ্য যোগানের শক্তি হারিয়েছে দেশের কৃষক বৈজ্ঞানিক পদ্ধতিতে উন্নত দেশেকৃষকের শক্তি বৃদ্ধি করছে কিন্তু দেশে এখনো মান্ধাতার আমলের চাষাবাদ ব্যবস্থা বহাল আছে তবে ধীরে ধীরে এই অবস্থারপরিবর্তন ঘটছে কৃষিতে আধুনিক প্রযুক্তি উন্নত পদ্ধতি প্রয়োগের গুরুত্ব বাড়ছে সম্প্রতি ব্যাংক , সমবায় সমিতি বামহাজনের ঋণের টাকায় আর উচ্চ ফলনশীল বীজের সাহায্যে কৃষিতে ফলন বাড়ছে কিন্তু ক্ষেতের ফসল কৃষকের ঘরে ওঠারআগেই ব্যাংক , সমবায় সমিতি কিংবা মহাজনের ঋণ পরিশোধ করতে হয়। তাই কৃষকের সুখস্বপ্ন অধরাই থেকে যায় কৃষিবাংলাদেশের অর্থনৈতিক উন্নয়নের প্রধান অবলম্বন হলেও কৃষকের শোচনীয় অবস্থার পরিবর্তন হয় না এখন তারা নানা রোগশোকে , অশিক্ষাকুশিক্ষা , দারিদ্র্য কুসংস্কারের বিরুদ্ধে লড়াই করছে

কৃষকের উন্নয়ন :

কৃষকের উন্নতি মনে জাতির উন্নতি দেশীয় অর্থনীতিতে কৃষির অবদানও যথেষ্ট তাৎপর্যপূর্ণ তাই দেশের উন্নয়নের স্বার্থেকৃষকের উন্নয়ন সাধন করা দরকার দেশকে উন্নত করতে হলে গ্রামকে উন্নত করতে হবে গ্রামকে উন্নত করতে হলে গ্রামেরমানুষের অর্থাৎ কৃষকের উন্নতি করতে হবে বৈজ্ঞানিক চাষবাসের ব্যবস্থা করতে হবে উন্নত বীজ সরবরাহ করতে হবে সেচ সারের যথাযথ ব্যবস্থা করতে হবে কৃষকদেরকে ঋণমুক্ত করে স্বনির্ভর করে গড়ে তুলতে হবে তবেই কৃষকের উন্নতি হবে কৃষকতার পণ্য দ্রব্যের ন্যায্য মূল্য পাবে আমাদের দেশের অধিকাংশ কৃষকই অশিক্ষিত তাদের শিক্ষিত করে তুলতে হবে আধুনিকযন্ত্রপাতি ব্যবহারে প্রশিক্ষণ দিতে হবে সারা বছর কৃষকের কাজ থাকে না তাই তারা অবসর সময়ে অর্থপূর্ণ করার জন্য কুটিরশিল্প সম্পর্কে তাদেরকে আগ্রহী করে তুলতে হবে

উপসংহার :

বাংলার কৃষকরাই বাঙালি জাতির মেরুদণ্ড বাংলাদেশের অর্থনীতির প্রাণশক্তি তারা তবুও কৃষকরা বহুকাল ধরে অবহেলিত বিশেষ করে তাদের সামাজিক মর্যাদা এখনো নিম্নমানের বিষয়ে আমাদের সকলের সচেতন দৃষ্টি রাখতে হবে কৃষক কৃষিকে গুরুত্ব দিলেই আমাদের অর্থনীতির চাকা সচল থাকবে দেশের দারিদ্র্য দূর হবে বাংলার ঘরে ঘরে ফুটে উঠবেস্বাচ্ছন্দ্যের ছবি বলা যায় , কৃষকের আত্মার ভেতরেই লুকিয়ে আছে আমাদের সমৃদ্ধি প্রাচুর্যের বীজ

Related Articles

Leave a Reply

Your email address will not be published.

Back to top button