থিংক অ্যান্ড গ্রো রিচ বই রিভিউ

বইঃথিংক অ্যান্ড গ্রো রিচ
মূল লেখক: নেপোলিয়ন হিল
বাংলায়: মোহাম্মদ আবদুল লতিফ
প্রকাশনী: রচনা প্রকাশ
প্রাপ্তিস্থান: সেরা বুকস .
ব্যক্তিগত রেটিং: ৮.৮/১০
Think and Grow Rich Bangla book Review
সাফল্যের কোনো বিবরণ প্রয়োজন নেই,
ব্যর্থতার অনুমতি নেই,নেই কোনো অজুহাত।
উক্তিটি কার বলতে পারেন? উক্তিটিবিখ্যাত জার্নালিস্ট নেপোলিয়ন হিলের। নেপোলিয়ন হিল ও এন্ড্রু কার্নেগী স্ব উদ্যোগে “থিংক অ্যান্ড গ্রো রিচ” বইটি ১৯৩৭ সালে প্রকাশ করেন।
এ বইটিতে রয়েছে সফলতার জন্য কিছু দিকনির্দেশনা রয়েছে যা ব্যক্তিকে তাঁর লক্ষ্য পূরণের দিকে এগিয়ে নিয়ে যেতে সাহায্য। বইটায় মোট পাঁচটি অধ্যায়ে লক্ষ্যপূরণের ট্রিকস গুলো দেয়া হয়েছে বিস্তারিতভাবে।
আকাঙ্ক্ষা সকল অর্জনের সূচনা বিন্দু দিয়ে শুরু করে পঞ্চম অধ্যায়ে সফলতার পথে আসা ব্যাসিক ভয়গুলোর বর্ণনা দেয়া হয়েছে ও তাথেকে উত্তরণের পথ ও আলোচনা করেছেন।
এ বইয়ের আলোচনায় আকাঙ্ক্ষা,কল্পনা শক্তিকে কাজে লাগানো, টিম ওয়ার্ক, অধ্যবসায়, ভয় দূর করে সামনে এগিয়ে যাওয়ার নানা কৌশল ব্যাখ্যা করা হয়েছে৷ সার্বিক আলোচনায় মোটাদাগে যে টপিকটি নজর কাড়ে তা হলো মাস্টার মাইন্ড নীতি। এটি এন্ড্রু কার্নেগি প্রথম নেপোলিয়ন হিলকে জানিয়েছিলেন এবং এই নীতির সাহায্যে মাত্র দশ বছরেই এন্ড্রু আমেরিকার দশ সেরা ধনীদের মধ্যে একজন হয়েছেন।
এ বইয়ের আলোচনায় মহাত্মা গান্ধীর কিছুটা আলোচনা রয়েছে। তৎকালীন সময়ের জীবিত সেরা প্রভাবশালী ব্যক্তি হিসেবে তাঁকে আখ্যায়িত করেছেন নেপোলিয়ন হিল কেননা,মহাত্মা গান্ধী তাঁর গুণাবলির দ্বারা সেসময়কার দুশো কোটি মানুষকে একত্রিত করতে পেরেছিলেন।
প্রত্যাশাকে সমৃদ্ধিতে রূপান্তরের বাস্তব কিছু পদক্ষেপ রয়েছে এতে। ২৫ বছরেরও বেশি সময় ধরে হিল তার সময়ের ধনী ও সবচেয়ে সফল ব্যবসায়ীদের সাথে বিশ্বস্তভাবে কাজ করে ডকুমেন্ট এবং সহযোগিতা গ্রহণ করেছিলেন -যার ফলে থিংক এন্ড গ্রো রিচ প্রকাশিত হয়েছে।
এককথায়, থিংক এন্ড গ্রো রিচ বইটিতে লক্ষ্য অর্জনের উপায়, লক্ষ্য পূরণে দৃঢ় প্রতিজ্ঞ থাকা এবং অন্যের মানসিক সমর্থনের উপায়ের দ্বারা কিভাবে মানসিক শক্তির দ্বারা চিন্তাভাবনা ও ধনী হতে সাহায্য করে এই বইতে তার উপর জোর দেওয়া হয়েছে।
রিভিউটি শেষ করতে চাই শ্যাংক ট্যাঙ্ক জাজ ও বিখ্যাত প্রযুক্তি উদ্যোক্তা রোবার্ট হার্জেভেক এর একটি লাইন দিয়ে-
“আমি যদি একটি বই সুপারিশ করি,এটা হতে হবে নেপোলিয়ন হিলের ‘থিংক অ্যান্ড গ্রো রিচ'”।

Leave a Comment